Home » জানার আছে অনেক কিছু » তথ্য-প্রযুক্তি তে মাইক্রোসফটের ৪২ বছর পূর্ন করতে যাচ্ছে
Self education it microsoft-logo
Self education it microsoft-logo

তথ্য-প্রযুক্তি তে মাইক্রোসফটের ৪২ বছর পূর্ন করতে যাচ্ছে

Self education it Microsoft windows Banner
Self education it Microsoft windows Banner

তথ্য-প্রযুক্তি এর এযুগে মাইক্রোসফ্ট একটি অনন্য প্রতিষ্ঠান। তথ্য-প্রযুক্তি তে অভিজ্ঞ সবারই ইচ্ছা মাইক্রোসফ্ট এ কাজ করতে চাওয়া। দুনিয়া জোড়া ক্ষ্যাতিই এর কারন। 

বিশ্ববিখ্যাত সফটওয়্যার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফট করপোরেশন দুনিয়াজুড়ে ‘উইন্ডোজ’ সফটওয়্যার দিয়ে সফটওয়্যার নির্মাতা হিসেবে শীর্ষস্থান দখল করে নিয়েছে। সম্প্রতি ৪২এ পা দেওয়ার দ্বার প্রান্তে মাইক্রোসফটের যাত্রা শুরু হয় ১৯৭৫ সালের ৪ এপ্রিল। মাত্র ১৯ বছর বয়সী বিল গেটস এবং ২২ বছর বয়সী পল অ্যালেন প্রতিষ্ঠা করেন মাইক্রোসফট। পার্সোনাল কম্পিউটারের সফটওয়্যার বাজারে প্রায় ৯০ শতাংশই মাইক্রোসফটের দখলে।

মাইক্রোসফট এর সংক্ষিপ্ত পরিচিতি-

১.  ১৯৮৪ সালে প্রথম মাইক্রোসফট প্রজেক্টের প্রথম প্রকল্প এবং বাণিজ্যিক সংস্করণ চালু হয় ।
২.  ১৯৮৫  সালে   উইন্ডোজ  ভিত্তিক    প্রথম  অপারেটিং  সিস্টেম  (ওএস)  মাইক্রোসফট ১.০ উন্মুক্ত হয় ।
৩.  ১৯৮৬ সালে  বিল গেটস  মাত্র ৩১ বছর   বয়সে   তরুণ  বিলিওনিয়ার  হয়ে  ওঠেন।
৪.  ১৯৯২  সালে  উইন্ডোজ  ৩.১   উন্মুক্ত  হয়  এবং  সে  সময়   উইন্ডোজ   ব্যবহারকারী   ছাড়ায়  দুই  কোটি   ৫০  লাখ।
৫.  উইন্ডোজ  ৯৫  উন্মূক্ত  হয়  এবং   মাত্র   ৪ দিনে   ১০  লাখ  বিক্রি   হয়।
৬. ২০০০  সালে  প্রথম   ডট নেট   ফ্রেমওয়ার্ক্   উন্মুক্ত  হয়।
৭. ২০০১ সালে উইন্ডোজ এক্সপি বাজারে ওএস হিসেবে ব্যাপক সাড়া ফেলে । একই সময়ে এ ওএস সংস্করণটি বিক্রি হয় ৪০ কোটি !
৮.  ২০০৩ সালে উইন্ডোজ সার্ভার ২০০৩ উন্মুক্ত হয় এবং দ্রুততার সঙ্গে সবচেয়ে ব্যবহৃত সার্ভার ওএস হিসেবে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।
৯.  ২০০৮  সালে  প্রথম   ৬৪বিট   সার্ভার   ওএস  উইন্ডোজ  সার্ভার  উন্মুক্ত  হয়।
১০.  ২০০৯  সালে  উইন্ডোজ ৭ উন্মুক্ত  হয় এবং   আগের   সকল   বিক্রিরে  রেকর্ড্    ভেঙে ৫২  কোটি  পাঁচ  লাখ  কপি  বিক্রি  হয় ।
১১. ২০১২ সালে উন্মুক্ত হয় উইন্ডোজ ৮। এ ছাড়া ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার ১০ চালু হয়। একই বছর সারফেস ট্যাবলেট বাজারে আনার মাধ্যমে ট্যাবলেট বাজারে প্রবেশ করে মাইক্রোসফট।
১২. ২০১৫  সালে   আসছে   মাইক্রোসফটের  নতুন  ব্রাউজার ‘স্পার্টান’।

মাইক্রোসফট এর তৈরীকৃত তথ্য-প্রযুক্তি পণ্য তালিকা:

১. উইনডোজ অপারেটিং সিস্টেম।
২. মাইক্রোসফট অফিস সফটওয়্যার।
৩. মাইক্রোসফট এক্সবক্স।
৪. মাইক্রোসফট লুমিয়া।
৫. মাইক্রোসফট স্মার্ট ফোন।
৬. মাইক্রোসফট হললেনস।
৭. মাইক্রোসফট ইমেইল সার্ভিস।(হট মেইল, ইয়াহু মেইল )
৮. তিনটি ওয়েব ব্রাউজার।
৯. জনপ্রিয় দুটি সার্চ ইঞ্জিন (বিং, ইয়াহু)
১০. বিশ্বের জনপ্রিয় টেক্সট এন্ড ভিডিও চ্যাট সার্ভিস (স্কাইপে)
১১. মাইক্রোসফট ঘড়ি।
১২. মাইক্রোসফট মোবাইল ঘড়ি ক্যামেরা থ্রি ইন ওয়ান।
১৩. মাইক্রোসফট এইচডি ওয়েব ক্যাম।
১৪. মাইক্রোসফট মাউস।
১৫. মাইক্রোসফট কী-বোর্ড।
১৬. মাইক্রোসফট গেম।
১৭. মাইক্রোসফট টেলিভশন।

ডেল এর সাথে যৌথ ভাবে ডেস্কটপ কম্পিউটার, ল্যাপটপ কম্পিউটার এবং প্রিন্টার তৈরী করে মাইক্রোসফট কর্পরেসন। এছাড়া বেশ কিছু নুতন পণ্য উত্পাদন প্রক্রিয়ায় আছে যা হয়ত আমরা ২০১৭ তেই দেখতে পাবো।

তথ্যসূত্র : গিক ইট  ডাউন,  মাইক্রোসফট  ও  উইকিপিডিয়া, প্রথম আলো এবং গুগল মামা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

6 + 2 =

shares
error: Content is protected !!