Home » ফ্রীল্যান্স মার্কেট প্লেস » আপওয়ার্ক » মার্কেটপ্লেস এ প্রোফাইল এপ্রুভ করবার সহজ টিপস।
simple tips for approve profiles at marketplace
simple tips for approve profiles at marketplace

মার্কেটপ্লেস এ প্রোফাইল এপ্রুভ করবার সহজ টিপস।

আজকের আলোচনা তাদের জন্যই যারা upwork এ প্রোফাইল এপ্রুভ করতে সমস্যা হচ্ছে। যারাই নুতন আসছেন upwork এ তাদের জন্য বিষয়টি খুবই গুরুত্ত্বপূর্ণ। প্রোফাইল এপ্রুভ না হলে তো কাজ পাবোই না বরং কাজ করাও একই ব্যাপার। শুরু করবার আগে নিজের এবং কাজ সম্পর্কে একটু ভাবুন তার পরে শুরু হয়ে যান কিভাবে আপনার প্রোফাইল টা সাজাবেন?

আরো একটু কাজ করবেন আর সেটা হচ্ছে নিচের স্টেপ গুলো একটু অনুসরণ করবেন।

ধাপ ১: নিজের কাজ সম্পর্কে পূর্ণ ধারণা থাকা। মানে আপনি যে বিষয়ে পূর্ণ ধারণা রাখেন সেই বিষয়ের উপর ভিত্তি করে আপনার প্রোফাইল সাজাবেন। আর আপনি একাধিক বিষয়ে ভালো জেনে থাকলে যে বিষয় সম্পর্কে আপনার অনেক বেশি জানা শুনা, যে বিষয় কাজের ব্যাপারে আপনার আত্ম বিশ্বাস অনেক বেশি সে বিষয়ের উপরেই ভিত্তি করেই আপনার প্রোফাইল সাজাবেন।

ধাপ ২ : ওভারভিউ: একটা ভালো ওভারভিউ আপনাকে কাজ পাবার ব্যাপারে অনেক বেশি সাহায্য করবে। একজন ক্লায়েন্ট কোনো করনি কে নিয়োগ করবার পূর্বে তার ওভারভিউ টা অনেক ভালো ভাবে পরে দেখে। আর তাই চেষ্টা করবেন ৫০০ শব্দের মাঝে নির্ভুল ভাবে একটা ওভার ভিউ লিখবেন।
অনেকের কথা বলতে সমস্যা না হলেও, লিখা লেখিতে সমস্যা হয় যদি আপনার একই সমস্যা থাকে তাহলে অনন্য কাউকে দিয়ে লিখিয়ে নিতে পারেন। প্রফেশনাল কাউকে নিতে চাইলে পরিচিত কেউ না থাকলে মার্কেট প্লেস থেকে লিখিয়ে নিতে পারেন। এক্ষেত্রে সহজ হতে পারে fiverr। তবে একটা সমস্যা যেটা কমন সমস্যা আর সেটা কোয়ালিটি আর সেটা নিজেকেই দেখে নিতে হবে।

ধাপ ৩: ৩ নাম্বার কাজটা হবে আপনার কাজ সন্বন্ধীয় কিছু টেস্ট। টেস্ট ছাড়া আপনার কাজ পাওয়া দুস্কর হবে। আপনার এই টেস্ট স্কিল দেখেই বায়ার আপনার প্রতি বিশষ্ট হবে। আর তাই টেস্ট এ ভালো করা মার্ক রাখা মানে আপনার কাজ পাবার ক্ষেত্রে আপনি একধাপ এগিয়ে থাকলেন। চেষ্টা করবেন কাজ সন্বন্ধীয় সকল টেস্ট দিবার। আর ইংলিশ টেস্ট বাধ্যতা মূলক। অ্যাভারেজ মার্ক এর নিচে হলে আবারো টেস্ট দিবেন। এবং কম টেস্ট রেজাল্ট লুকিয়ে রাখবেন।

ধাপ ৪: প্রোফাইল ছবি এটা আরো একটা গুরুত্ত্ব পূর্ণ বিষয়। একজন মানুষের অবয়ব বা ছবি সেই মানুষকে চিনতে সহায়তা করে। আর তাই প্রোফাইল ছবি দেবার সময় খেয়াল রাখবেন যেন, ছবিটা পরিষ্কার হয়, প্রফেশনাল পাসপোর্ট সাইজ এর হয় এবং অবশ্যই হাস্য উজ্জ্বল হয়। একজন হাস্যোজ্জ্বল মানুষ মানে সে কাজের কোনো ব্যত্তয় ঘটাবে না। তাই নিজের ছবিটি এমনি এক ছবি ব্যবহার করবেন। ছবির ম্যাপ ২ ইঞ্চি X ২ ইঞ্চি নিতে হবে এতে ছবি পূর্ণ ভাবে দেখা যাবে।

Syample of right Pasport Picture - selfeducationit.com
সঠিক প্রোফাইল পিকচার এর উদাহরণ।

ধাপ ৫: এখন ব্যবহার করবেন আপনার কাজের কিছু স্যাম্পল কাজ, যা আপনাকে কাজ পেতে সহায়তা করবে। একটি নুতন প্রোফাইল ক্লায়েন্ট কাজ কেন দিবে? এই কেনো উত্তর দিবে আপনাকে স্যাম্পল কাজ। মনে রাখবেন কাজগুলো যেন আপনার নিজেরই করা হয়। ক্লায়েন্ট হয়তো আপনাকে বলেই বসলো যে আপনার এতো নাম্বার কাজটা আমার নাম করে দিন তাহলে বিপদে পরে যাবেন। তাই নিজের কাজ ছাড়া অন্যের কাজ স্যাম্পল কাজ হিসেবে আপলোড করবেন না।

উপরে উল্লিখিত বিষয়গুলো অনুসরণ করলে আপনার প্রোফাইল অপ্প্রভ না হয়ে আর কই যাবে। প্রোফাইল সাজানোর আগে উপরের লেখা গুলো কয়েকবার পরে নিন বুঝুন তার পরে সে অনুযায়ী কাজ শুরু করে দিন। ইনশা আল্লাহ আপনি মার্কেট প্লেস প্রথম সফলতার মুখ দেখবেন। সব কাজেই আল্লাহ তায়ালার উপরে ভরসা রাখুন। শ্রষ্টা কখনো তার সৃষ্টির সকল ভালো কাজে সহায়তা করবেন।

যদি লেখাটি আপনাদের কাজে আসে তাহলে কমেন্টস করে জানান। তাহলে এর পরে লিখবো কিভাবে প্রপোজাল সাবমিট করবো। সাথে থাকুন নিজেকে আপডেট রাখুন। কি চান লিখে জানান কমেন্টস এ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twenty − 4 =

shares
error: Content is protected !!